পৌর নির্বাচন-২০১৫ : সাভারে সম্ভাব্য প্রার্থীদের ব্যাপক প্রচার

bpn news
Share Button

বাংলা ফটো নিউজ (সাভার) : দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ন্যায় ঢাকার সাভার উপজেলায় পৌরসভা নির্বাচন প্রচার এখন সরগরম। সাভার পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা বেশ জোরেশোরে নির্বাচনী প্রচার চালাতে শুরু করেছেন। ভোটাররাও নানা হিসাব নিকাশ করতে শুরু করেছে।

দলের মনোনয়ন পেতে বর্তমান আ’লীগ সমর্থিত মেয়র ও সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীরা কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের কাছে জোরলবিং করলেও চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা এখনও ঘোষণা করা হয়নি।

মাঠে এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। এরা হচ্ছেন- সাভার পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল গণি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ উদ্দিন খান ইমু। অপরদিকে বিএনপির প্রার্থী তালিকায় আছেন
দুইবার নির্বাচিত বর্তমান সাভার পৌর মেয়র রেফাত উল্লাহ। তিনি নাশকতা মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন।
সাভার উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল গণি সাভার পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি। দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে মাঠ পর্যায়ে তার নির্বাচনী প্রচারে রয়েছেন। পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন ওয়ার্ডের তৃণমূলের নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারের মন জয় করতে নানামুখী প্রচারণায় তার হয়ে মাঠে কাজ করছেন বেশ কয়েক জন সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা।
আওয়ামী লীগের অপর প্রার্থী সাভার পৌরসভার প্রথম নির্বাচিত মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ উদ্দিন খান ইমু। তিনি আওয়ামী লীগের দুর্দিনের ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতা হিসেবে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে তিনিও দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ এক অংশের সমর্থিত প্রার্থী।
এছাড়াও মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা পৌরবাসীর পানি, বিদ্যুৎ ও রাস্তাঘাটের সমস্যা সমাধান কল্পে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করার আশ্বাস দিয়ে ভোটারদের কাছে ভোট চাচ্ছেন।

নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাচ্ছেন মেয়র প্রার্থীরা। আর নির্দলীয় হবে কাউন্সিলর। তাই এবারের নির্বাচনকে ঘিরে সর্বমহলে চলছে নানান হিসাব নিকাশ। চলছে আলোচনা-সমলোচনা। তেমনি….

পৌর নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে তো ?

এমন প্রশ্ন অনেকেরই….

কারণ, পৌরসভা নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হওয়ার পর থেকে নাশকতা দমনের নামে শুরু হয়েছে বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতার। এখনও বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতার অব্যাহত রয়েছে।

অনেক সম্ভাব্য প্রার্থী গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন, আর যারা গ্রেফতার হননি তাদের অনেকে গ্রেফতার আতংকে বাড়িতে ঘুমাতে পারছেন না। এর ফলে নির্বাচনী কর্মকাণ্ডের দিক থেকে বিরোধীদলীয় সম্ভাব্য প্রার্থীরা সরকারি দলের প্রার্থীদের চেয়ে পিছিয়ে পড়ছেন। এতে অবাধ নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচনী মাঠে যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি হওয়া প্রয়োজন, তা নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার আগে থেকেই বিনষ্ট হয়ে রয়েছে।

উল্লেখ্য, এবারই প্রথম দলীয় ভিত্তিতে পৌরসভা নির্বাচন হতে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে এরই মধ্যে স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) নির্বাচন বিধিমালা-২০১০ সংশোধন করা হয়েছে। এ ছাড়া নির্বাচন কমিশন পৌরসভা (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা-২০১৫ প্রণয়ন করেছে। সারা দেশের ৩২৩টি পৌরসভার মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ২৩৪টি পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেছে।






Related News

kolki

ধামরাই নান্নার ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় হাত বাড়ালেই মিলছে মাদক

Share Button

ধামরাই উপজেলার নান্নার ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামে হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে মরণ নেশা মাদক। প্রতিদিনRead More

BPN ad

আশুলিয়ায় দুটি কারখানায় ব্যাতিক্রমধর্মী শ্রমিক প্রতিনিধি নির্বাচন অনুষ্ঠিত

Share Button

বাংলা ফটো নিউজ : শ্রমিকদের মাঝে সু-সম্পর্ক সৃষ্টির পাশাপাশি শিল্প প্রতিষ্ঠানে সুষ্ঠ কাজের পরিবেশ বজায়Read More

  • সাভারে সন্ত্রাসী হামলা ও পুলিশি নির্যাতনে অসহায় সাংবাদিক পরিবার
  • মতলব দক্ষিনে বাপ-বেটার ইয়াবা সেন্ডিকেট’র কবলে নারায়নপুর
  • সাভারে পুলিশ পিকআপ ভ্যান ও বাস-প্রাইভেটকার ত্রিমুখী সংঘর্ষে আহত ১৮
  • ইন্টার্নি চিকিৎসকদের কর্মবিরতি, চরম দুর্ভোগে এনাম মেডিকেল হাসপাতালের রোগীরা
  • সাভারে পুকুরে ডুবে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু
  • আশুলিয়ায় এক গৃহবধুকে গলা ও দুই পা কেটে হত্যার চেষ্টা
  • আশুলিয়ায় ভুত আতঙ্কে দ্বিতীয় দিনেও শ্রমিক অসুস্থ হওয়ার বিষয়টি রহস্যজনক
  • আশুলিয়ায় পিকআপ ভ্যান চাপায় এক ট্রাফিক পুলিশ সদস্য নিহত