\ নিপীড়নের প্রতিবাদে আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলেন | Bangla Photo News
Wednesday , December 19 2018
Homeজেলার সংবাদনিপীড়নের প্রতিবাদে আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলেন
নিপীড়নের প্রতিবাদে আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলেন

নিপীড়নের প্রতিবাদে আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলেন

বাংলা ফটো নিউজ : যশোরের কেশবপুরে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের নির্যাতন, মামলা দিয়ে হয়রানি ও সন্ত্রাসী লালন-পালনের অভিযোগ উঠেছে গামছা বাহিনীর বিরুদ্ধে।

এ ব্যপারে মঙ্গলবার একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। এতে লিখিত বক্তব্য পড়েন কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এসএম রুহুল আমীন। এসময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা, কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা এইচএম আমির হোসেনসহ বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করে বলা হয়, ‘২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকে কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ওপর ধারাবাহিকভাবে হামলা, নির্যাতন, মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। সংগঠনকে সবরকম উপায়ে ক্ষতিগ্রস্ত করার চেষ্টা চলছে। এসবের জন্য দায়ী সন্ত্রাসী লালন পালনকারী এমপি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক।’

সংবাদ সম্মেলনে নির্যাতিত নেতা-কর্মীদের তালিকা তুলে ধরে বলা হয়, কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের অফিসের নিচে থাকা উপজেলা কৃষকলীগের অফিস স্থানীয় কুখ্যাত ‘হাতুড়ি বাহিনী’ ও ‘গামছা বাহিনী’ দিয়ে দখল করে নেওয়া হয়েছে। পরে প্রতিমন্ত্রী ছাত্রলীগের নামে ওই অফিস উদ্বোধন করেন এবং সেখানে হাতুড়ি ও গামছা বাহিনীর ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহারের সুযোগ কওে দেন। এরপরই কেশবপুর আওয়ামী লীগের ১২টি ইউনিটের ত্যাগী নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা, অত্যাচার, নির্যাতন শুরু হয়।

গত ৩ নভেম্বর তারা যশোর জেলা ও কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হাসান আলমগীরকে বেধড়ক মারপিট করে। ১৬ ডিসেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত মুক্তিযোদ্ধা সংবর্ধনা মঞ্চ ও প্যান্ডেল ভাংচুর করে হাতুড়ি বাহিনী। সদস্য সংগ্রহ অভিযান ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের জন্য গত ১০ ফেব্রুয়ারি কেশবপুর আওয়ামী লীগের ১২টি ইউনিটের সমন্বয়ে প্রস্তুতি সভা করতে গেলে হাতুড়ি বাহিনী ও গামছা বাহিনী সে সভা পণ্ড করে দেয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী পালন এবং স্বাধীনতা দিবস পালনের প্রস্তুতি সভায় হাতুড়ি বাহিনী হামলা চালায়।

এসময় আহত হন উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাবেয়া ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক মমতাজ বেগম, মজিদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমানসহ অনেকে।

অভিযোগ করা হয়, ১৬ ডিসেম্বর বিজয়স্তম্বে ফুল দিতে যাওয়ার সময় স্থানীয় ত্রিমোহিনী মোড়ে আওয়ামী লীগ নেতা সোহরাবকে বেধড়ক মারপিট করা হয়। একইদিন উপজেলা ডাক বাংলোর মধ্যে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর এপিএসের উপস্থিতিতে আওয়ামী লীগ নেতা আতিয়ার রহমানকে মারধর করা হয়। গত ২৩ মার্চ আওয়ামী লীগ অফিসের সামনে বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করা হয়। পরে এই বোমা বিস্ফোরণের অভিযোগে আওয়ামী লীগের নিবেদিতপ্রাণ ১১ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়।

মামলা করে হাতুড়ি বাহিনীর প্রধান খন্দকার আব্দুল আজিজ, যার নামে কেশবপুর থানায় একাধিক মামলা ও ওয়ারেন্ট রয়েছে। নেতারা বলেন, দলীয় নেতা-কর্মীদের ওপর এসব অত্যাচার-নির্যাতনের বিষয় বিভিন্ন সময়ে জেলা আওয়ামী লীগ ও কেন্দ্রকে অবহিত করা হয়েছে। এখন পিঠ দেয়ালে ঠেকে যাওয়ায় বাধ্য হয়ে বিষয়টি গণমাধ্যমের সামনে উপস্থাপন করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*