\ সাভারে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ১০ | Bangla Photo News
Wednesday , November 21 2018
Homeখেলাধুলাসাভারে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ১০
সাভারে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ১০

সাভারে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ১০

বাংলা ফটো নিউজ : সাভারে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে ব্যাপক ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষের এ ঘটনায় আহত হয়েছে অন্তত ১০জন।শনিবার সন্ধ্যায় সাভার অধরচন্দ্র্র সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ অনুর্ধ-১৭এর চলমান ফাইনাল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও খেলার আয়োজকরা জানান, বিকেলে যথাসময়ে ফাইনালে উঠা সাভার পৌরসভা এবং আশুলিয়ার মধ্যে খেলা শুরু হয়। পুরো মাঠ দর্শকদের অংশগ্রহনে কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে যায়। খেলা শুরুর কিছুক্ষন পর আশুলিয়া দলের একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে পেনাল্টি থেকে গোল পায় সাভার পৌরসভা। এরপর থেকেই আশুলিয়া দলের প্লেয়ার এবং সমর্থকরা উত্তেজিত হতে শুরু করে। খেলার প্রথমার্ধ শেষ হয় এভাবেই। ১-০ গোলে এগিয়ে থাকে সাভার পৌরসভা একাদশ। দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শেষের ৪মিনিট বাকি থাকতেও যখন গোল পাচ্ছিলনা আশুলিয়া একাদশ তখনই একটি হ্যান্ডবলের দাবী তুলে আশুলিয়া একাদশের সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে মাঠের ভেতরে প্রবেশ করে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করে। পৌরসভা একাদশের সমর্থকরা এতে বাধার সৃষ্টি করলে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশ এবং র‌্যাব সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে উশৃঙ্খল সমর্থকদের উপর লাঠিচার্য করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। সংঘর্ষের এ ঘটনায় খেলার রেফারি আব্দুস সামাদসহ অন্তত ১০জন আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে এসময় সাভার মডেল থানা পুলিশ ২জনকে আটক করে।

পরে আর মাঠে না ফেরায় ১-০ গোলে সাভার পৌরসভা একাদশকে বিজয়ী হিসেবে ঘোষনা করা হয়।

সাভারের সংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমান, পৌরসভার মেয়র হাজী মোঃ আব্দুল গনি এবং সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ রাসেল হাসানসহ সরকারের পদস্থ কর্মকর্তা, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এসময় উপস্থিত থাকলেও সংঘর্ষের সময় তারা অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*